Skip to main content

ইসলামের দৃষ্টিতে ভোটের গুরুত্ব

Article Highlights

‘ভোট কেনা-বেচা বা সম্পদ দিয়ে ভোট আদায় কিংবা টাকা বা সম্পদ পাওয়ার কারনে ভোট দেওয়া ঘুষ দেয়া নেয়ার মতই অন্যায়’

ভোটের অর্থ হলো, মত প্রকাশ করা,পছন্দ বা অপছন্দ প্রকাশ করা। নির্বাচনে সিদ্ধান্ত গ্রহনের লক্ষে ব্যক্তির নিজস্ব মত কিংবা জনমত যাচাইয়ের প্রয়োজন পড়ে থাকে। সে ক্ষেত্রে ভোট একটি বহুল প্রচলিত মাধ্যম। ভোট প্রদানের অধিকার প্রাপ্ত ব্যক্তিতে ভোটার বলে। রাজনীতিতে ভোট এমন একটি পদ্ধতি যার মাধ্যমে একজন প্রার্থী গনতান্ত্রিক পন্থায় সরকার ব্যবস্থার জনপ্রতিনিধি হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত হন। ভোটাধিকার প্রয়োগের ক্ষেত্রে টাকার লোভ দুনীর্তির কাছে জিম্মি হওয়া যাবেনা। তা ছাড়া ভোট কেনা-বেচা বা সম্পদ দিয়ে ভোট আদায় কিংবা টাকা বা সম্পদ পাওয়ার কারনে ভোট দেওয়া ঘুষ দেয়া নেয়ার মতই অন্যায়। সুতরাং এটি পরিহার করতে হবে। ইসলামী শরীয়াতের দৃষ্টিতে ভোটের চারটি অবস্থান রয়েছে। তা হল: ১.সাক্ষ্য ২.সুপারিশ ৩.প্রতিনিধি নিয়োগ ৪. আমানত।

১.সাক্ষ্য-শরীয়তের দৃষ্টিতে ভোট প্রদান সাক্ষ্য প্রদানের নামান্তর। সত্য সাক্ষ্য এবং সত্য কথা বলতে পক্ষপাতিত্ব করা যাবেনা। সর্ব অবস্থায় ন্যায়ের সাক্ষ্য প্রদান করতে হবে। মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন,“হে ঈমানদারগন তোমরা ন্যয়ের ওপর প্রতিষ্ঠিত থাক আল্লাহর ওয়াস্তে ন্যায় সংগত সাক্ষ্য দান কর, তাতে তোমাদের নিজেদের বা পিতামাতার অথবা নিকটবর্তী আত্মীয়স্বজনের যদি ক্ষতি হয় তবুও”।(সূরা নিসা-১৩৫)

২.সুপারিশ: ভোটদাতা প্রতিনিধি নির্বাচনের উদ্দেশ্য কাউকে ভোট প্রদান করার অর্থ হলো তিনি এই মর্মে সুপারিশ করলেন এই প্রার্থীকে প্রতিনিধি মনোনয়ন করা হোক। আর সুপারিশ করার জন্য ইসলামী বিধান হল বৈধ কাজের জন্য সুপারিশ করলে সাওয়াব পাবে অবৈধ কাজের জন্য সুপারিশ করলে গুনাহগার হবে। আল্লাহ পাক ঘোষনা করেছেন,“ যে লোক সৎকাজের জন্য কোন সুপারিশ করবে তা থেকে সেও একটি অংশ পাবে, যে লোক সুপারিশ করবে মন্দ কাজের জন্য সে তার পাপের বোঝার ও একটি অংশ পাবে। বস্তুত আল্লাহ সর্ব বিষয়ে ক্ষমতাবান”।(সূরা নিসা-৮৫)

৩.প্রতিনিধি নিয়োগ: ভোটদাতা প্রার্থীকে কোন পরিষদে তার পক্ষ থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ প্রস্তাব করেছেন। প্রতিনিধি বানাতে হল যোগ্য ব্যক্তিকে বানাতে হবে। যেহেতু যে লোককে প্রতিনিধি বানানো হচ্ছে সে সকল লোকের প্রতিনিধি তাই  যোগ্য ব্যাক্তিকে প্রতিনিধি নিয়োগ করা ঠিক হবেনা।

৪.আমানত: ভোট একটি গনতান্ত্রিক অধিকার ও এক প্রকার পবিত্র আমানত। শরীয়তের দৃষ্টিতে ভোট দেওয়ার অর্থ হল আমানত রাখা বস্তুটি প্রাপককে পৌছে দেওয়া। মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন,“তোমরা আমানত সমূহ তার প্রাপকদের কাছে পৌছে দাও”। (সূরা নিসা-৮৫)