Skip to main content

সাংবাদিক আফসান চৌধুরী বলেছেন, ইন্টারনেট-ভিত্তিক  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম নিয়ে সরকার চিন্তিত

সিনিয়র সাংবাদিক আফসান চৌধুরী বলছেন, বাংলাদেশের ২৫টা টেলিভিশন স্টেশনের মধ্যে বেশিরভাগই দেখছি, আওয়ামী লীগ সমর্থক অথবা আওয়ামী লীগের এমপি অথবা আওয়ামী লীগের মন্ত্রীর লোকের। এসব গণমাধ্যম নিয়ে সরকার খুব একটা চিন্তিত না। ছাপা গণমাধ্যম সবচেয়ে দায়িত্বশীল। সোশ্যাল মিডিয়া ছাড়া সরকার অন্য কোন কিছুকে পাত্তাদেয় না। শুক্রবার বিবিসি নিউজে তিনি আরো বলেন, ইন্টারনেট-ভিত্তিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম নিয়ে সরকার চিন্তিত।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের নিরাপত্তা বাহিনীগুলো ফেসবুকে তাদের ভাষায়, গুজব ছড়ানো বন্ধের জন্য তৎপর হলেও তারা শুধুই সরকারের বিপক্ষে যেগুলো যাচ্ছে, সেগুলোর দিকে নজর দিচ্ছেন। যখন সরকারের বিরুদ্ধে খারাপ কথাটা যায় তখন তারা সক্রিয় হয়। অথচ সম্প্রতি ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন যে ভুয়া খবর প্রচারের জন্য তারা বাংলাদেশে ছয়টি অ্যাকাউন্ট এবং নয়টি পেজ বন্ধ করে দিয়েছে। ফেসবুক অফিস বলেছে, এগুলোতে বাংলাদেশের সরকারের সমর্থনে বিভিন্ন কনটেন্ট পোস্ট করা হচ্ছিলো, এবং এর সাথে সরকার-সংশ্লিষ্ট কিছুুু লোকের সম্পর্ক আছে। এনিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীগুলো ছিলো নিশ্চুপ। কর্মকর্তারা বলেছেন, এখনো পর্যন্ত যাদের আটক করা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে সুনিদৃষ্ট অভিযোগ রয়েছে।

তিনি আরো জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ভালো কথা বলার সুযোগ যেমন তৈরি করে দেয়, তেমনি খারাপ কথা বলার সুযোগও তৈরি করে। সরকার বিরোধীরা মনে করেন, ফেসবুকে যাতে কেউ সরকার বিরোধী মনোভাব প্রকাশ না করে সেজন্য নিরাপত্তা বাহিনীগুলো ধরপাকড়ের মাধ্যমে এক ধরণের ভীতি তৈরি করার চেষ্টা করছে।