Skip to main content

সংসদ উপনেতা আর চিফ হুইপ পদে আসছে নতুন মুখ

আগামী ২৮শে জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদের মেয়াদ শেষে ৩০ জানুয়ারি বিকেলে একাদশ সংসদের প্রথম অধিবেশন শুরু হবে। কিন্তু কে হবেন সংসদ উপনেতা আর কে হবেন হুইপ এ নিয়ে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। আলোচনায় অনেকের নাম উঠে আসলেও, মুখ খুলতে নারাজ আওয়ামী লীগ নেতারা। তবে কেউ মুখ না খুললেও অভিজ্ঞ সংসদ সদস্য এবং দলে গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে, এমন ব্যক্তিরাই একাদশ জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ ও সংসদ উপনেতা নির্বাচিত হবেন এটা নিশ্চিত ভাবেই বলা যায়।

দশম সংসদে উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় এ পদে নাম শোনা যাচ্ছে প্রবীন পার্লামেন্টারিয়ান হিসেবে পরিচিত বেগম মতিয়া চৌধুরীর। ৮ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ অবশ্য উপেনতা হিসেবে নিজের নাম থাকার বিষয়টি অস্বীকার করেছন। আলোচনায় আছে আমির হোসেন আমুর নামও।

চীফ হুইপ পদে টানা ৬ বারের নির্বাচিত সাংসদ নুরে আলম লিটন চৌধুরীর নাম শোনা যাচ্ছে। নবম সংসদে হুইপ ছিলেন তিনি। এছাড়া সংসদের কয়েকজন হুইপের মধ্যে থাকবেন তরুণ সাংসদরা।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, 'অনেকবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন এমন অভিজ্ঞ কাউকেই সাধারণত চিফ হুইপ হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। সংসদ সদস্য, সিনিয়র এবং দলের মধ্যে সার্বিক গ্রহণযোগ্যতা আছে এমন ব্যক্তিকেই সংসদ উপনেতা হিসেবে নির্বাচিত করা হয়। তবে, এগুলো ঠিক করবেন আমাদের সংসদ নেতা।'

একাদশ সংসদ অধিবেশন বসতে এখন আর কোন আইনগত বাধা নেই বলে জানান সাবেক আইন মন্ত্রী ব্যারিষ্টার শফিক আহমেদ। তিনি বলেন, 'আমাদের সংবিধানের ১৪৮ এর ৩ ধারাতে আছে শপথ বাক্য পাঠ করা অপরিহার্য। যেদিনই শপথ বাক্য পাঠ করবেন, সেদিন থেকেই ধরে নেয়া হবে সংসদ সদস্যরা স্বীয় পদে অধিষ্ঠিত হয়েছেন। এখন যদি কোনো আসন কোনো কারণে খালি হয়ে যায়, তাহলে তো তার জন্য সংসদ অধিবেশন থেমে থাকবে না।' সূত্র: সময়টিভি

অন্যান্য সংবাদ