Skip to main content

লালমোহন উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে আলোচনার শীর্ষে নাঈম

দ্বীপ জেলা ভোলার লালমোহন উপজেলার আগামী ফেব্রুয়ারীর উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে আলোচনার শীর্ষে রয়েছে সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা, রাজনৈতিক ফেলো ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল, মাস্টার ট্রেইনার বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও বর্তমান ঢাকা মহানগরীর কদমতলী থানার নেতা ফরহাদ নাঈম।

তার রাজনৈতিক কর্মকান্ড এবং দলের জন্য তার ত্যাগের কারণে এবার এ উপজেলা থেকে চেয়ারম্যান হিসেবে পেতে চায় এলাকার জনগণ।
এ বিষয় লালমোহন উপজেলার আওয়ামী লীগের নেতারা ও সাধারণ মানুষ জানান, ফরহাদ নাঈম একজন আওয়ামী লীগের নিবেদিত কর্মী। দুর্দিনে দলের পাশে থেকে সংগঠনকে শক্তিশালী করেছে। বিশেষ করে ২০০১ সালের বিএনপির এমপি মেজর হাফিজের মৌমাছি বাহিনীর নজিরবিহীন অত্যাচারে এলাকা ছাড়তে হয় তাকে। নির্যাতনের শিকার হতে হয় তার পরিবারকে। তার বৃদ্ধ মা-বাবাও এই অত্যাচার থেকে রেহাই পায়নি। ১/১১ সময় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা মুক্তি আন্দোলনে তার ভূমিকা ছিল স্বরণ করার মত। এ জন্য তার উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে মনোনয়ন পাওয়া উচিৎ।

অপরদিকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরবর্তী সময়ে স্থানীয় রাজনৈতিক মহল, শুভাকাঙ্খীরা ফরহাদ নাঈমকে নিয়ে নানা রকম ফেসবুক স্ট্যাটাস দিয়ে তাকে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায়। স্থানীয়দের দাবি, তিনি সব সময় সাধারণ মানুষের পাশে থাকেন। বিশেষ করে তরুণরা তাকে খুব ভালবাসে একজন সৎ মানুষ হিসেবে। তার কাছে ছোট বড় কোনো বেধা-বেদ নেই। আর এ কারণেই বড়, ছোট, ধনী দরিদ্র সবাই তাকে তাদের প্রতিনিধি হিসেবে পেতে চায়।

জানা গেছে,  আগামী ফেব্রুয়ারী মাসে উপজেলা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে। যার কারণে ইতিমধ্যে উপজেলা পরিষদে মনোনয়ন নিয়ে তোড়জোড় শুরু করেছে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা।

এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগের একাধিক শীর্ষ নেতা জানান, দলের জন্য নিবেদিত কর্মী যারা, দলের দুর্দিনে নেতা-কর্মীদের পাশে দাঁড়িয়েছে এবং সংগঠনকে শক্তিশালী করার কাজে অর্থ ও শ্রম ব্যয় করেছে তাদেকে এবার মূল্যায়ন করা হবে। দলের সভাপতি শেখ হাসিনা কোন কর্মীকে ভুলে যান না। তার সঠিক মূল্যায়ন তিনি করেন।

অন্যান্য সংবাদ