Skip to main content

রপ্তানির যে টার্গেট রয়েছে তা পূরণ করাই হবে মূল লক্ষ্য: বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি

Article Highlights

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, ২০২১ সালের মধ্যে ৫০ বিলিয়ন রপ্তানির যে টার্গেট আমাদের রয়েছে তা পূরণ করাই হবে মূল লক্ষ্য। মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। ২৪তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, ২০২১ সালের মধ্যে ৫০ বিলিয়ন রপ্তানির যে টার্গেট আমাদের রয়েছে তা পূরণ করাই হবে মূল লক্ষ্য। মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। ২৪তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো যৌথভাবে এ মেলার আয়োজন করছে।

পাশাপাশি আগামী দিনে অঞ্চলভিত্তিক শিল্প উন্নয়নে নজর দেওয়া হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

এ সময় চলমান পোশাক শ্রমিকদের আন্দোলন বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, পোশাক শ্রমিকদের যে আন্দোলন চলছে তার সমাধান শ্রমিকদের সাথে আলোচনা করেই করা হবে। বিকাল ৪টায় শ্রম ভবনে শ্রমিক প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠক করা হবে। তবে শ্রম পরিবেশ অশান্ত হওয়া কখনোই কাম্য নয়। এ বিষয়ে কাজ করতে হবে।

বাণিজ্য সচিব মো. মফিজুল ইসলাম বলে, পূর্বাচলে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা প্রাঙ্গণ তৈরির কাজ চলছে। জায়গার কিছুটা সংকট সেখানে রয়েছে। তাছাড়া অন্যান্য সীমাবদ্ধতা কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করছি। পূর্বাচলে বাণিজ্য মেলা হলে অনেক সুযোগ সুবিধা বেড়ে যাবে। ২০২০ সালের মধ্যেই পূর্বাচলে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা প্রাঙ্গণের কাজ শেষ হবে বলে আশা করছি। ২০২১ সাল থেকে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা পূর্বাচলে করা সম্ভব হবে।

এবার আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় বিভিন্ন ক্যাটাগরির মোট প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ১১০টি। মোট মিনি প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ৮৩টি ও মোট স্টলের সংখ্যা ৪১২টি। মেলা মাঠের আয়তন ৩১ দশমিক ৫৩ একর।

মেলায় প্রবেশের জন্য প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য টিকিটের ফি নির্ধারণ হয়েছে ৩০ টাকা ও অপ্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ২০ টাকা। এবার অনলাইন ও কিউআর কোডের মাধ্যমেও টিকেট কাটতে পারবেন দর্শনার্থীরা।

অন্যান্য সংবাদ