Skip to main content

বিপিএলের ইতিহাসে প্রথম সুপার ওভার

Article Highlights

মিরপুরে প্রথমে ব্যাট করা খুলনা নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫১ রান সংগ্রহ করেছিল। জবাবে চট্টগ্রামও ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫১ রান তোলে।

ষষ্ঠ বিপিএলে (বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ) নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে এসে প্রথম জয় পেতে যাচ্ছিল খুলনা টাইটান্স।  কিন্তু জয় আর পাওয়া হলো না। জয় পায়নি চট্টগ্রামও।  উত্তেজনায় ঠাসা শেষ ওভারে চিটাগং ভাইকিংসের ১৯ রান দরকার ছিল। আরিফুলের বলে ফ্রাইলিঙ্ক ওই রান তুলতে পারেনি। ১৮ রান তুলে নিলে স্কোর সমতায় আসে।  ফলে বিপিএল প্রথম টাই দেখলো।  ফলে বিপিএলের ইতিহাসে প্রথমবার সুপার ওভার খেলা হচ্ছে।

মিরপুরে প্রথমে ব্যাট করা খুলনা নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫১ রান সংগ্রহ করেছিল। জবাবে চট্টগ্রামও ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫১ রান তোলে।  ইয়াসির আলী, মুশফিকুর রহিমের ব্যাটে লক্ষ্যের বেশ কাছেই গিয়েছিল চট্টগ্রাম। শেষদিকে ফ্রাইলিঙ্ক ব্যাট হাতে দারুন চেষ্টা করেন। ৬ বলে ১৯ রান দরকার ওই সময় ৫ বলে ১৮ রান নিলে শেষ বলে ১ রান লাগতো। কিন্তু ওই বলটা ডট হওয়ায় স্কোর লেভেলে শেষ হয় খেলা।

খুলনার ব্যাটিংয়ের শুরুটা পল স্টার্লিং ও জুনায়েদ সিদ্দকী ভালো করলেও ধরে রাখতে পারেননি। দলীয় ৩১ রানে স্টার্লিং ব্যক্তিগত ১৮ রানে নাঈম হাসানের বলে বিদায় নেন। ১০ রানের বিরতির পর রবি ফ্রালিনকে কাটা পড়েন জুনায়েদ (২০)।

তবে তৃতীয় উইকেট জুটিতে হাল ধরেন ডেভিড মালান ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এই জুটিতে তারা ৭৭ রান তোলেন। দলীয় সর্বোচ্চ ৪৫ রান করে আবু জায়েদের বলে সিকান্দার রাজাকে ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়েন মালান। ৪৩ বলে ৩টি চার ও একটি ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজান এই ইংলিশ তারকা। আর ৩১ বলে ৪টি চারের সাহায্যে ৩৩ রান করে সানজামুল ইসলামের বলে ফেরেন রিয়াদ। চিটাগং বোলারদের মধ্যে সানজামুল ৪ ওভারে ৩৭ রানের বিনিময়ে সর্বোচ্চ ২টি উইকেট নেন। এছাড়া একটি করে উইকেট ভাগাভাগি করেন ফ্রাইলিনক, নাঈম, খালেদ আহমেদ ও আবু জায়েদ।

চিটাগং ভাইকিংস ষষ্ঠ আসরে এর আগে ৩টি ম্যাচ খেলেছে। যেখানে ২টি জয়ের বিপরীতে হেরেছে একটিতে। তবে অপরদিকে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্বে খুলনা ৩ ম্যাচ খেলে এখন পর্যন্ত কোনোটিতেই জয় পায়নি।