Skip to main content

নিঃশ্বাস পরীক্ষার মাধ্যমে ক্যান্সার শনাক্তে ‘ব্রেথেলাইজার’ পদ্ধতি আবিষ্কার

ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের নতুন অধ্যার সূচনা হলো ‘ব্রেথেলাইজার’  নামক এক অভিনব পদ্ধতির মাধ্যমে। এ পদ্ধতির মাধ্যমে দেহে ক্যান্সারের জীবাণু রয়েছে কিনা, তা রোগীর শ্বাস প্রশ্বাসের মাধ্যমেই শনাক্ত করা সম্ভব হবে। খবর টিবিএন টোয়েন্টিফোর

ক্যান্সার শনাক্ত করতে নতুন এই পদ্ধতির আবিষ্কার করেছেন ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। এই পদ্ধতির মাধ্যমে নিঃশ্বাসের নমুনা থেকে ক্যান্সারের জীবাণু শনাক্ত করা সম্ভব। 

শারীরিক কোনো জটিলতা ছাড়াই কম সময়ে রোগ নির্ণয়ের এই পদ্ধতি সফল হলে বিশ্বজুড়ে হাজারো মানুষের জীবন বাঁচানো সম্ভব হবে। 

রিবেকা কোলডিক্স নামে এক নারীসহ কমপক্ষে ১৫০০ মানুষের শ্বাস প্রশ্বাস গবেষকরা সংগ্রহ করেছেন। 

ব্যারেট’স ইসোফেগাস নামে এক রোগে আক্রান্ত রিবেকা। এই রোগ প্রায় সময়ই ক্যান্সারে রূপ নেয়। ব্রেট পাইয়ক্সি প্রক্রিয়ায় রোগীকে একটি যন্ত্রের মাধ্যমে কমপক্ষে ১০ মিনিট সময় ধরে শ্বাস নিতে হয়। শ্বাসের সঙ্গে মিশে থাকা ক্যান্সারের নমুনা সংগ্রহ করতে পারে যন্ত্রটি। পরবর্তীতে নমুনাগুলো গবেষণার জন্য গবেষণাগারে পাঠানো হয়। কোনো ওষুধ ব্যবহার না করেই শ্বাসের নমুনা দিয়ে ১৫ মিনিটের মধ্যে হাসপাতাল ছেড়ে যান রিবেকা।

এই পদ্ধতিটি ব্যবহার শুরু হলে ক্যান্সার শনাক্ত করতে কিছু দিন পরপর অ্যান্ডোসকপির মতো জটিল ও কষ্ট সাধ্য পরীক্ষা মধ্যদিয়ে যেতে হবে না রোগীকে। 
গবেষকরা আশা করছেন, নতুন এই পদ্ধতিতে ভিন্ন ভিন্ন ক্যান্সারের ভিন্ন ভিন্ন আলামত শ্বাসের ঐ নমুনাগুলোর মধ্যে পাওয়া যাবে। যার কারণে আগে থেকেই রোগ শনাক্ত করতে পারলে রোগীর বেঁচে যাওয়ার হার বেড়ে যাবে। 

ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষক জানান, অধিকাংশ রোগী ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার অনেক পরে রোগ শনাক্ত করা সম্ভব হয়। এ কারণে যুগান্তকারী এই পদ্ধতি নিয়ে বেশ আশাবাদি তারা। এধরনের আরো গবেষণা নিয়ে কাজ করতে চান বলে জানান গবেষকরা। 

বিশ্বজুড়ে প্রতি ৬ জন মানুষের মধ্যে একজন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। এক জরিপ অনুযায়ী গত বছর ক্যান্সার রোগের কারণে প্রায় সাড়ে ৯ মিলিয়ন মানুষ মারা গেছে। 

নতুন উদ্ভাবিত এই পদ্ধতিটি ২ বছর ধরে পরীক্ষা করে দেখা হবে। এটি সফল হলে বৈশ্বিকভাবে এর ব্যবহার শুরু হবে বলে আশাবাদি এর সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা। যার মাধ্যমে প্রাণঘাতি ক্যান্সার সস্তা কিন্তু কার্যকরী উপায়ে শনাক্ত করা সম্ভব হবে।    
  
 

অন্যান্য সংবাদ