Skip to main content

চাহিদার তুলনায় সরবরাহ কম থাকায় বেড়েছে সামুদ্রিক মাছের দাম

বন্দরনগরী চট্টগ্রামে চাহিদার তুলনায় সরবরাহ কম থাকায় বেড়েছে সব ধরনের সামুদ্রিক মাছের দাম। কুয়াশার কারণে সাগরে মাছ ধরতে সমস্যা হওয়ায় বাজারে আসছে ফ্রোজেন ফিশ। তবে প্রকারভেদে কেজি প্রতি ৫ থেকে ৩০ টাকা পর্যন্ত কমেছে দেশি মাছের দাম। আর ইলিশ মাছের দাম রয়েছে সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে।

মূলত কয়েকদিন ধরেই তীব্র শীত পড়েছে তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে কুয়াশা। আর এই কুয়াশার কারণে সাগরে মাছ ধরা অনেকটা কঠিন। তাই বাজারে কমেছে সামুদ্রিক মাছের যোগান যে কারণে সামুদ্রিক মাছের দাম বেড়েছে কেজি প্রতি ৫ থেকে ৪০ টাকা। শীত মৌসুমে ইলিশ মাছের স্বাদ কম থাকে তাই দামও থাকে সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে। শুক্রবার (১১ জানুয়ারি) কেজি প্রতি ইলিশ মাছ বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত। তবে জাটকা বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা কেজি দরে।

মাছের যোগানদাতা একজন বলেন, শীতের জন্য মাছের দাম কমে গেছে। পরে আরো একটু বাড়বে।

আরেকজন বলেন, যেগুলো ফ্রিজিং ইলিশ সেগুলোর দাম ৩০০-৩২০ এবং যেগুলো দেশি সেগুলো ৫০০ থেকে ৫৫০ টাকা।

সামুদ্রিক মাছের যোগান কম থাকলেও বেড়েছে দেশি মাছের যোগান।  বিশেষ করে শীত মৌসুমে পুকুর এবং খালগুলো শুকিয়ে যায়। আর পাওয়া যায় প্রচুর মাছ। আর এ মাছের যোগান বেড়েছে বাজারে। যে কারণে সব ধরনের দেশীয় মাছের দাম কমেছে কেজি প্রতি ১০ থেকে ৩০ টাকা পর্যন্ত।

একজন ক্রেতা বলেন, কাতলা আছে ৭ হাজার থেকে ৮ হাজার টাকা পর্যন্ত আর তেলাপিয়া চুয়াল্লিশ থেকে ৪ হাজার টাকা পর্যন্তও আছে।

সামুদ্রিক মাছ ধরার ক্ষেত্রে নানা ধরনের অভিযোগ রয়েছে ব্যবসায়ীদের। সাধারণত সাগরে জলদস্যু বেড়ে যাওয়ার অভিযোগ তাদের। খবর সময় টিভি

অন্যান্য সংবাদ