Skip to main content

কুমিল্লায় আট দিনের ব্যবধানে ৭৫ জন রোহিঙ্গা নাগরিক আটক!

মাত্র আট দিনের ব্যধানে কুমিল্লায় ৭৫ জন রোহিঙ্গা নাগরিককে আটক করে পুলিশ সদস্যরা। মায়ানমারের আরাকান রাজ্য থেকে ওই দেশের সেনাবাহিনীর দ্বারা বিতাড়িত হয়ে রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ - শিশুরা বাংলাদেশ ও ভারতের বিভিন্ন এলাকায় চলে আসে। 

তবে ভারত সরকার রোহিঙ্গা নাগরিকদের মায়ানমারে ফিরে পাঠানোর উদ্যেগ নেয়ার পর থেকে ভারতে অবস্থান করা রোহিঙ্গা নাগরিকরা সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবির চোখ ফাঁকি দিয়ে কাঁটা তারের ফাঁকফোকড় দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করছে।
 
গত ৩ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার কুমিল্লা মহানগরীর ঈদগা সংলগ্ন এলাকা থেকে ৩১ জন রোহিঙ্গা শিশু,নারী-পুরুষসহ ৩১ জনকে আটক করে। একই দিন ব্রাহ্মণপাড়ায় আটক হয় আরো ১৭ জন রোহিঙ্গা নাগরিক।সব মিলিয়ে ৪৮ জন আটক হয়।  

এদিকে গত ৯ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার সেনানিবাস এলাকায় কাকলী রেস্তরার সামনে রাজধানী ঢাকার উদ্দেশ্য বাসের জন্য অপেক্ষমান শিশু নারী পুরুষসহ ২৭ জন রোহিঙ্গা নাগরিককে আটক করে সেনানিবাস পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা।  ফাঁড়ির ইানচার্জ মাহমুদ জানান, স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে রোহিঙ্গা নাগরিকদের আটক করে কোতয়ালী থানায় হস্তান্তর করি। 

কুমিল্লা কোতয়ালী থানার অফিসার্স ইনচার্জ আবু ছালাম মিয়া জানান, আটক রোহিঙ্গাদের আনুষ্ঠানিকতা শেষে কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে জেলার সীমান্তের বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ও সীমান্তবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়া, মায়ানমারের আরাকান রাজ্য থেকে বিতাড়িত রোহিঙ্গা নাগরিকদের মধ্যে যারা ভারতের জুম্মু কাশ্মীরসহ অন্যান্য এলাকায় অবস্থান করছে সেসব রোহিঙ্গা নাগরিকদের ভারত সরকার মায়ানমারে পাঠাতে কাজ করছে। এমন সংবাদে ভারতে অবস্থান করা রোহিঙ্গারা মায়ানমারে ফিরে যেতে চায় না। 

রোহিঙ্গাদেও আশংকা তারা ফিরে গেলে আবারো তাদের উপর নির্যাতন হতে পারে। তাই তারা ভারত ও বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে দালালদের মাধ্যমে বাংলাদেশে প্রবেশ করছে। বিশ্বস্তসূত্রে জানা যায়, ভারতে অবস্থান করা হাজারো রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করার জন্য সীমান্তের উপারে অবস্থান করছে। 

এদিকে দেশের  সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবির চোখ ফাঁকি দিয়ে কিভাবে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে প্রবেশ করছে এমন প্রশ্নের উত্তরে বিজিবি  কুমিল্লা কোটবাড়ীর সেক্টও কমান্ডার আমিরুল ইসলাম শিকদার জানান, রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের বিষয়টি তিনি  সম্পূর্ণ অবগত নন। তবে যেহেতু কুমিল্লা জেলায় গত ৮ দিনে ৭৫ জন রোহিঙ্গা নাগরিক সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে তাই আমি বিজিবি সদস্যদেরকে সীমান্তে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বাড়তি নজরধারী করার জন্য নির্দেশ দিয়েছি।