Skip to main content

আ’লীগ সরকারও গণমানুষের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে শেষ রক্ষা পাবে না : সাইফুল হক 

Article Highlights

‘৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক ও নৈতিক পরাজয় ঘটেছে। বিদেশীদের কুটনৈতিক সার্টিফিকেট দিয়ে ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনী লজ্জা ঢাকা যাবে না। মানুষের ভোটের অধিকার হরণ করে আওয়ামী লীগ তার গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক ঐতিহ্যকে বিসর্জন দিয়েছে, কালিমালিপ্ত করেছে।’

বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেছেন, মানুষের ভোটাধিকারের অমর্যাদা ও অসম্মান করে অতীতে কোন স্বৈরশাসক টিকে থাকতে পারবেনা। বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার গণমানুষের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে শেষ রক্ষা পাবে না। শনিবার সেগুনবাগিচায় সংহতি মিলনায়তনে পার্টির জাতীয় পরিষদের সভায় সূচনা বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

সাধারণ সম্পাদক বলেন, ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক ও নৈতিক পরাজয় ঘটেছে। বিদেশীদের কুটনৈতিক সার্টিফিকেট দিয়ে ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনী লজ্জা ঢাকা যাবে না। মানুষের ভোটের অধিকার হরণ করে আওয়ামী লীগ তার গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক ঐতিহ্যকে বিসর্জন দিয়েছে, কালিমালিপ্ত করেছে। যে আওয়ামী লীগ দীর্ঘদিন জনগণের ভোটাধিকারের জন্য লড়াই করেছে, ত্যাগ স্বীকার করেছে, আজ সেই দল পুরোপুরি জনগণের ভোটাধিকারের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। 

তিনি বলেন, ক্ষমতায় থাকার জন্য জনগণের উপর নির্ভর না করে রাষ্ট্রের বলপ্রয়োগের ক্ষমতার উপর নির্ভর করতে হচ্ছে। তারা গোটা রাষ্ট্র ব্যবস্থাকে জনগণের মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দিচ্ছে। এটা আত্মঘাতি বিপজ্জনক প্রবণতা। বিদেশীদের সার্টিফিকেট আর কুটনৈতিক শিষ্টাচারের বার্তা দিয়ে ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন, সংসদ ও সরকারকে বৈধতা দেয়া যাবে না। ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনী লজ্জা ঢাকা যাবে না।

তিনি আরও বলেন, ৩০ ডিসেম্বর জনগণকে যেভাবে অপমান আর প্রতারিত করা হয়েছে তা কেবল কলঙ্কের নতুন অধ্যায় রচনা করেছে। তিনি জালিয়াতি আর প্রতারণার নির্বাচন ও সংসদ বাতিল করে অনতিবিলম্বে নিরপেক্ষ তদারকি সরকারের অধীনে পুনঃনির্বাচনের উদ্যোগ নেয়ার দাবি জানান। একই সাথে তিনি ভোট ডাকাতি, প্রতারণা আর জালিয়াতির সহযোগী বর্তমান নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগও দাবি করেন। 

পার্টির রাজনৈতিক পরিষদের সদস্য বহ্নিশিখা জামালীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই সভায় আরও বক্তব্য রাখেন পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আকবর খান, আবু হাসান টিপু, আনছার আলী দুলাল, রাশিদা বেগম, মুকলেছুর রহমান, সজীব সরকার রতন, এ্যাপোলো জামালী, মাহমুদ হোসেন, মোফাজ্জল হোসেন মোশতাক, শেখ মো. শিমুল, জুঁই চাকমা, প্রশান্ত দেব ছানা ও ফিরোজ আহমেদ প্রমুখ। সভার শুরুতে সাভারে পুলিশের গুলিতে নিহত গার্মেন্টস শ্রমিক সুমন মিয়া এবং নির্বাচনী সহিংসতায় নিহতদের জন্য শোক জানানো হয়।
 

অন্যান্য সংবাদ